বাইবেলের গল্প

জীবিত ও সুস্থ হল!

যেসব লোক সমস্যায় পড়ত যীশু সবসময়ই তাদের প্রতি দয়া করতেন। একদিন যায়ীর নামে এক স্থানীয় সমাজ-ঘরের নেতা যীশুর কাছে সাহায্যের জন্য এল।
সে বলল, ‘আমার ছোট মেয়েটি খুবই অসুস্থ, মনে হচ্ছে সে মারা যাবে। দয়া করে আমার সঙ্গে আসুন।’
তখন যীশু যায়ীরের সঙ্গে তাদের বাড়ীতে রওনা দিলেন আর অনেক লোক তাদের পিছনে পিছনে যেতে লাগল।
সেই ভিড়ের মধ্যে ছিল একজন অসুস্থ মহিলা। সে বারো বছর ধরে এক ডাক্তার থেকে অন্য ডাক্তার দেখিয়েও সুস্থ হয় নি। কোন ডাক্তারই তার রক্তস্রাব রোগ ভাল করতে পারে নি। তাই যীশু ছিল তার একমাত্র আশা।
সে বলল, ‘যদি শুধু তাঁর কাপড়টা ছুঁতে পারি তবে আমি নিশ্চিত যে, আমি সুস্থ হয়ে যাব।’
যখনই সে যীশুর কাছাকাছি এসে মাত তাঁর চাদরের কোনাটা ধরল অমনিই তার রক্তস্রাব বন্ধ হয়ে গেল।
যীশু জিজ্ঞেস করলেন, ‘কে আমার চাদর ধরল ? যীশুর চারপাশে কত লোক উপ্চে পড়ছে তাই এরকম প্রশ্নে তাঁর শিষ্যেরা একটু অবাক হলেন। কিন্তু যীশু জানতেন যে, কেউ তাঁকে স্পর্শ করে সুস্থ হয়েছে।
মহিলাটি এগিয়ে এসে নম্রভাবে যীশুকে সব কথা জানাল।
যীশু বললেন, ‘আপনার বিশ্বাস আপনাকে সুস্থ করেছে। শান্তিতে যান।’
সেই সময় যায়ীরের বাড়ী থেকে কয়েকজন খবর নিয়ে এল, ‘গুরুকে আর কষ্ট দিয়ে লাভ নেই। আপনার মেয়েটি মারা গেছে।’
যীশু যায়ীরকে বললেন, ‘ভয় করবেন না, শুধু বিশ্বাস করুন, তাতেই মেয়েটি সুস্থ হবে।’
তারা যখন বাড়ীর কাছে এলেন তখন সবাই কান্নাকাটি ও শোক করছে কারণ মেয়েটি মারা গেছে।
যীশু বললেন, ‘কান্নাকাটি করবেন না। মেয়েটি মারা যায় নি- ঘুমাচ্ছে মাত্র।’ এরপর তিনি পিতর, যোহন, যাকোব ও মেয়েটির মা-বাবাকে নিয়ে সেই মেয়েটির কামরাতে গেলেন।
যীশু মেয়েটির হাত ধরে বললেন, ‘খুকি উঠ!’
তখনই মেয়েটি উঠে বসল।
যীশু বললেন, ‘ওকে কিছু খেতে দিন।’
তারা বাবা-মা বিশ্বাসই করতে পারছিল না যে, তাদের মেয়ে বেঁচে উঠেছে। তাই তারা সবাই খুব খুশি ও কৃতজ্ঞ হল যে, তাদের মেয়ে আবার জীবিত হয়ে উঠেছে ও এখন ভাল আছে।
লূক ৮:৪০-৫৬

মন্তব্য লিখুন

মন্তব্য লিখতে এখানে ক্লিক করুন

ক্রাইষ্টবিডি রেডিও